ভারতের অদ্ভূত কিছু রীতি- যা দেখলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন (ভিডিও)

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর । এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা। ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

প্রেমিকাকে যৌনপল্লীতে বেচে দিল যুবক!

যার সঙ্গে ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখেছিল মেয়েটি, সেই মনের মানুষটিই তাকে বিক্রি করে দিল যৌনপল্লীতে। তবে দুবছর পর মেয়েটি তার বাড়িতে ফিরতে সক্ষম হয়েছে।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর দিনাজপুরের বাসিন্দা এক মেয়ে প্রেমে পড়েছিল মালদহের কালিয়াচকের একটি ছেলের। বিয়ে করবে বলে বাড়ি থেকে পালিয়েছিল। কিন্তু প্রেমিক তাকে বিক্রি করে দেয় বিহারের সীতামঢ়ীর এক যৌনপল্লীতে।

দুবছর ধরে সেখানেই ছিল মেয়েটি। যৌনপল্লীতেই আলাপ হয় রেলকর্মী এক যুবকের সঙ্গে। তিনি সীতামঢ়ীরই বাসিন্দা। মেয়েটির ভাষ্য, ওই এলাকা থেকে বেরোনোর সব রাস্তাই বন্ধ ছিল। নিজে পালাতে পারবে না বুঝতে পেরে, তার কাছে যারা আসতেন, তাদের সাহায্য চাইত। কিন্তু তার কথায় গুরুত্ব দিত না কেউ-ই। ব্যতিক্রম শুধু ওই যুবক।

যুবকের কথায়, যখনই ওর কাছে যেতাম, কান্নাকাটি করত। খুব খারাপ লাগত আমার। খালি মনে হতো, ওকে যদি সাহায্য করা যায়। যদি কোনোভাবে ওকে বাড়িতে ফিরিয়ে দেয়া যায়।

পরে মেয়েটির কাছ থেকে বাড়ির ঠিকানা জেনে সেই যুবক চলে যান উত্তর দিনাজপুরে, মেয়েটির বাড়িতে। মেয়েটির পরিবারের লোকজনের সঙ্গে দেখা করেন।

গত শনিবার বাড়ি ফিরেছে মেয়েটি। এখন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি।

তার মা বললেন, মেয়ে অনেক যন্ত্রণা সহ্য করেছে। কটা দিন যাক। ওকে নিজের পায়ে দাঁড় করাবই।

ওই যুবক জানান, এ রকম আরও অনেক মেয়ে এসব যৌনপল্লীতে রয়েছে। পাচার রুখতে এবং পাচার হওয়া সেসব মেয়েকে ফেরাতে পুলিশের আরও তৎপর হওয়া উচিত।

স্থানীয় থানার ওসি দিলীপকুমার রায় জানান, ঘটনার ঠিক পরেই দুজনকে গ্রেফতার করা হলেও মেয়েটির খোঁজ মেলেনি। পুলিশ এখন তার জবানবন্দি নিয়েছে। তবে দোষীদের ধরা হবে বলে জানান ওসি।