আর নয় সেক্সুয়াল ট্যাবলেট একটি রসুনই পারবে একটানা ৩ঘন্টা সুখ দিতে !! বিস্তারিত ভিডিওটিতে

আর নয় সেক্সুয়াল ট্যাবলেট একটি রসুনই পারবে একটানা ৩ঘন্টা সুখ দিতে !! বিস্তারিত ভিডিওটিতেআর নয় সেক্সুয়াল ট্যাবলেট একটি রসুনই পারবে একটানা ৩ঘন্টা সুখ দিতে !! বিস্তারিত ভিডিওটিতে
বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর । এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা। ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

কেন খাবেন গুণে ভরা কাঁকরোল? জেনে নিন এর উপকারিতা পড়ুন…
কাঁকরোল। ছোট কাঁঠালের মতো দেখতে কাঁটা কাঁটা সবুজ রঙ্গের একটি সবজি। কাকরোল তরকারি, ভাজি বা সিদ্ধ করে ভর্তা হিসেবে খাওয়া যায়। এতে প্রচুর ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার, কার্বোহাইড্রেট, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, লুটেইন, জেনান্থিন প্রভৃতি থাকে, যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। বিশেষজ্ঞরা বলেন, কাঁকরোলে টমেটোর চেয়ে ৭০ গুণ বেশি লাইকোপিন থাকে, গাজরের চেয়ে ২০ গুণ বেশি বিটা ক্যারোটিন থাকে, কমলার চেয়ে ৪০ গুণ বেশি ভিটামিন সি থাকে এবং ভুট্টার চেয়ে ৪০ গুণ বেশি জিয়াজেন্থিন থাকে। তাই স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় কাঁকরোল রাখা ভালো। এবার জেনে নিন কাঁকরোলের আরও নানা উপকারিতা-

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, কাঁকরোলের পুষ্টি উপাদান ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে এবং ক্যান্সার কোষের সংখ্যা বৃদ্ধিকে ধীর গতির করতে পারে। এতে নির্দিষ্ট একটি প্রোটিন থাকে, যা ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধিকে প্রতিহত করতে পারে। এজন্যই কাঁকরোলকে ‘স্বর্গীয় ফল’ আখ্যা দেওয়া হয়। অ্যানেমিয়া প্রতিহত করে কাঁকরোলে প্রচুর আয়রন থাকার পাশাপাশি ভিটামিন সি ও ফলিক এসিড ও থাকে। এ কারণে নিয়মিত এটি খেলে অ্যানেমিয়ার প্রতিহত করা সম্ভব হয়।

কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়: যাদের কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশি বা যাদের উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের রয়েছে তাদের নিশ্চিন্তে কাঁকরোল খেতে পারেন। এটি উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে।কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ প্রতিরোধ করে: যেহেতু কাঁকরোলে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে তাই এটি কার্ডিওভাস্কুলার রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। সক্রিয় জীবনযাপনের পাশাপাশি কাঁকরোল খাওয়া হৃদস্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটায়: কাঁকরোলে চোখের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ভিটামিন, বিটাক্যারোটিন ও অন্যান্য উপাদান থাকে, যা দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে সাহায্য করার পাশাপাশি চোখের ছানি প্রতিরোধেও সাহায্য করে। বিষণ্ণতা প্রতিহত করে: কাঁকরোলে সেলেনিয়াম, মিনারেল এবং ভিটামিন থাকে, যা নার্ভাস সিস্টেমের উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রাখে। তাই বিষণ্ণতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহায্য করে কাঁকরোল

। তারুণ্য ধরে রাখে: কোষের কার্যক্রমকে উদ্দীপিত করার মাধ্যমে এবং স্ট্রেস কমানোর মাধ্যমে বয়স বৃদ্ধির প্রক্রিয়াকে ধীর গতির করতে সাহায্য করে কাঁকরোল। কোলাজেনের গঠনকে পুনর্নির্মাণের মাধ্যমে বয়সের ছাপ প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে এটি। কাঁকরোল হার্ট এ্যাটাকের সম্ভাবনাকে কমিয়ে দেয়: গবেষণায় পাওয়া গেছে যাদের শরীরে লাইকোপিনেরে মাত্রা বেশি, তাদের চেয়ে যাদের শরীরে এর মাত্রা কম তাদের শতকরা ৫০ ভাগ বেশি হার্ট এ্যাটাকের সম্ভাবনা রয়েছে। তাহলে কাঁকরোল আপনার হার্টেরও উপকার করবে নিশ্চয়ই। মেদ কমাতে কাঁকরোল: কমলার চেয়ে শতকরা ৪০ ভাগ বেশি ভিটামিন সি রয়েছে কাঁকরোলে। ভিটামিন সি শরীরের অতিরিক্ত মেদ

পুড়িয়ে ফেলতে সাহায্য করে।আর রক্তে ভিটামিন সি’র পরিমাণ কম থাকলে ফ্যাট বার্নিং কম হয়।ফলে ওজন কমে না।যাদের রক্তে প্রয়োজনীয় পরিমাণে ভিটামিন সি আছে,তাদের ফ্যাট বার্নিং হয় শতকরা ২৫ ভাগ।ফলে তাদের মোটা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

ত্বকের যত্নে কাঁকরোল
কাঁকরোলে আছে ভুট্টার চেয়ে শতকরা ৪০ ভাগ বেশি জিযানথেন এবং গাজরের চেয়ে শতকরা ২০ ভাগ বেশি বিটা ক্যারোটিন, আছে ভিটামিন ই। এগুলো আপনার ত্বককে দূষণ থেকে রক্ষা করে। আপনার ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলতে দেয় না। কোন কোন দেশে কাঁকরোলের জুস পাওয়া যায়। কাঁকরোলের জুস ত্বকের জন্য উপকারি।
এক কথায় কাঁকরোলের আরও কিছু গুণাগুন।
গর্ভবতী মা’দের জন্য কাঁকরোল বেশ উপকারী। গর্ভাবস্থায় অনেক মা’দের স্নায়ুবিক ত্রুটি দেখা দেয়। কাঁকরোলে থাকা ভিটামিন বি ও সি স্নায়ুবিক ত্রুটি হতে বাধা দেয়। শুধু কাঁকরোল নয় এর শেকড়ের রস আদার সঙ্গে খেলে শ্বাসকষ্ট দূর হয়। কিডনির পাথর নির্মূলে দুধের সঙ্গে কাঁকরোল বাটা উপকারী। কাঁকরোল খেলে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। কাঁকরোলে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান থাকে। যা শরীরে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। কাশি নিরাময়ে কাঁকরোল বাটা কুসুম গরম পানিতে মিশিয়ে খাওয়া যেতে পারে। কাঁকরোলে

পাওয়া যায় বিটা ক্যারোটিন, আলফা ক্যারোটিন, লিউটেইন । ত্বকে বার্ধক্যের ছাপ মুছতে তাই সবজিপ্রেমীরা কাঁকরোল খান নিয়মিত। কাঁকরোলে আছে ভিটামিন এ । যা দৃষ্টিশক্তিকে মজবুত রাখে। কাঁকরোলে প্রচুর আয়রন, ভিটামিন সি ও ফলিক এসিড থাকে। তাই অ্যানেমিয়ার প্রতিহত করে কাঁকরোল। অতিরিক্ত কোলেস্টেরেল কমায় কাঁকরোল। কাঁকরোলে সেলেনিয়াম, মিনারেল এবং ভিটামিন থাকে। যা নার্ভাস সিস্টেমের উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রাখে। তাই বিষণ্ণতা দূর করতেও কাঁকরোল খাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

পুরুষের যৌন জীবন নিয়ে মিথ্যা তথ্য এবং প্রতারণা !

স্বপ্নদোষ নিয়ে ভুল ধারণা
অনেকে মনে করেন, ছোটবেলায় স্বপ্নদোষ হওয়ার কারণে তাঁর যৌনশক্তি বা স্বাস্থ্য হ্রাস পেয়েছে। অথবা একদিন স্বপ্নদোষে সাত-আটদিনের বীর্য বের হয়ে যায়। শরীরের সব শক্তি বের হয়ে যাচ্ছে। এর সবই ভুল ধারণা। প্রকৃত তথ্য হচ্ছে স্বপ্নদোষ স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী একটি শারীরিক প্রক্রিয়া। বিজ্ঞানী কিনসে এবং তাঁর সহকর্মীদের (১৯৪৮) রিপোর্টে দেখা যায়, ১৪ বছরের ছেলেদের শতকরা ২৫ ভাগ এবং সতের বছর বয়সীদের ৭৫ ভাগেরই স্বপ্নদোষ হয়। শতকরা ৮৩ ভাগ পুরুষেরই জীবনে কখনো না কখনো স্বপ্নদোষ হয়েছে। যৌবনপ্রাপ্তির পর থেকে বীর্য তৈরি হয়ে বীর্য থলিতে জমা হতে থাকে। কিন্তু শারীরবৃত্তীয় নিয়ম অনুযায়ী বীর্য দীর্ঘ দিন সঞ্চিত থাকা সম্ভব নয়। যদি কেউ হস্তমৈথুন বা যৌনমিলন না করে তবে একপর্যায়ে স্বপ্নদোষ নামক সুস্থ্য শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তা দেহের বাইরে বের হয়ে যায়। হস্তমৈথুনে কি যৌনরোগ হয়? : হস্তমৈথুন নিয়েও প্রচুর ভুল ধারণা আমাদের সমাজে প্রচলিত রয়েছে। যেমন : হস্তমৈথুন করলে যৌন রোগ বা সমস্যা হয়,পরবর্তী জীবনে যৌন ক্ষমতা হারিয়ে যায়, লিঙ্গের

আগা মোটা বা গোড়া চিকন হয়ে যায়, রগ ঢিলা হয়, হাতের ঘষায় লিঙ্গ চিকন হয়, চেহারা বসে যায়, চোখ গর্তে ঢুকে যায়, কিডনির সমস্যা হয়, ব্রেনের সমস্যা হয় ইত্যাদি- এ সবই ভুল ধারণা। প্রকৃত তথ্য হচ্ছে, এর মাধ্যমে উপরে উল্লিখিত কোনো ক্ষতিই হয় না। হস্তমৈথুন হচ্ছে বহুল প্রচলিত যৌন অভ্যাস যার মাধ্যমে পুরুষ বা নারী সহবাসের বিকল্প পন্থায় যৌনতৃপ্তি পেয়ে থাকে। বিভিন্ন উপাত্ত থেকে দেখা যায় শতকরা ৯০ থেকে ৯৫ ভাগ পুরুষ ও ৬০-৬৫ ভাগ মহিলাদের জীবনে হস্তমৈথুনের অভিজ্ঞতা রয়েছে। তবে জানা দরকার হস্তমৈথুনের হার ব্যক্তিভেদে বিভিন্ন হতে পারে। অনেক সময় হস্তমৈথুন নিয়ে বেশি বেশি দুশ্চিন্তা করার কারণে চোখমুখে কিছুটা দুর্বলতা প্রকাশ পেতে পারে।