Breaking News
Home / Entertainment / যার জন্য সংসার ভাঙল, অপু বিশ্বাসের বয়ফ্রেন্ড কে? দেখুন সরাসরি ভিডিও তে

যার জন্য সংসার ভাঙল, অপু বিশ্বাসের বয়ফ্রেন্ড কে? দেখুন সরাসরি ভিডিও তে

ঢাকায় ছবির জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্স লেটার পাঠিয়েছেন নায়ক শাকিব খান। গত ২৮ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে তিনি এই নোটিশ পাঠান। সোমবার সেটি হাতে পেয়েছেন অপু বিশ্বাস। শাকিব খানের আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম পরিবর্তন ডটকমকে বলেছেন, অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্সের দুটি কারণ দেখিয়েছেন শাকিব খান।

এর মধ্যে গুরুতর কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন, অপু বিশ্বাস নাকি তার কথিত বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ভারতে বেড়াতে গেছেন। এই সময়ে ছেলে জয়কে বাসার কাজের লোকের কাছে রেখে গেছেন।

প্রেমের পর দীর্ঘ আট বছর শাকিব-অপু নিজেদের বিয়ের খবর গোপন রেখেছিলেন। এ সময়ে অন্য কারও সঙ্গে অপু বিশ্বাসের প্রেম-সংক্রান্ত কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

হঠাৎ করেই শাকিব খানের মাধ্যমে জানা গেল, অপু বিশ্বাস প্রেম করছেন। আর তার সঙ্গেই ভারত ঘুরতে গিয়েছিলেন। কিন্তু, প্রশ্ন উঠেছে অপু বিশ্বাসের বয়ফ্রেন্ড কে? অবশ্য শাকিব খান তার ডিভোর্স লেটারে কারও নাম উল্লেখ করেননি।

শাকিব খান এখন ছবির শুটিংয়ের জন্য দেশের বাইরে রয়েছেন। অপু বিশ্বাস নিকেতনের বাসায় রয়েছেন। তবে তারা কেউই এ বিষয়ে মুখ খুলছেন না।

সোমবার বিকেল থেকেই গণমাধ্যমকর্মীরা ভিড় করছেন অপুর বাসার সামনে। কিন্তু, তিনি কারও সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১০ এপ্রিল একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে এসে বিয়ে ও সন্তানের খবর জানান অপু বিশ্বাস।

তিনি জানান, ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিলেন তারা। কলকাতার একটি ক্লিনিকে ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর জন্ম হয় শাকিব-অপুর ছেলে আব্রাহাম খান জয়ের।

এ খবর প্রকাশের পর থেকেই শাকিবের সঙ্গে অপুর মান-অভিমান চলছিল। তাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। এখন ছেলেকে নিয়ে রাজধানীর নিকেতনের বাসায় অপু তার পরিবারের সঙ্গে শাকিবকে ছাড়াই আছেন।

অপু ২০০৪ সালে আমজাদ হোসেনের ‘কাল সকালে’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন। এরপর ২০০৬ সালে পরিচালক এফ আই মানিক পরিচালিত ‘কোটি টাকার কাবিন’ ছবিতে নায়িকা হিসেবে শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। ২০০৬ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত এই জুটি ৭০টির মতো জনপ্রিয় ছবিতে অভিনয় করেন।

অপুকেই দায়ী করলেন মৌসুমী

বাংলা চলচ্চিত্র শিল্প যখন আইসিউতে মুমূর্ষু অবস্থায়। তখন শাকিব অপুর শক্তিশালী জুটি প্রাণের সঞ্চার করেছিলো। প্রায় ৭০টির বেশি ছবি এক সাথে করা এই জুটির সব শেষে শুভ মিলন হলেও, বাস্তবে এর চিত্র উল্টো। রিল লাইফের প্রেম রসায়ন রিয়েল লাইফে প্রভাব ফেললেও পরিণতি ছিল বেশ তিক্ত। সম্প্রতি অপুকে তালাকনামা পাঠিয়েছেন শাকিব খান। সোমবারের পর থেকে এই ঘটনা নিয়ে মিডিয়ায় চলছে তোলপাড়।

তাদের এই দশ বছরের সংসারের এমন পরিণতি কেউই প্রত্যাশা করেননি। যেখানে তাদের রয়েছে এক বছর বয়সী একজন পুত্র সন্তনা। এদিকে শাকিবের এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে তাদের অনেক সহকর্মী তাদের মতামত জানিয়েছেন।

শাকিবের সাথে বহু ছবিতে কাজ করা মৌসুমী অনেকটাই অপুকে দোষ দিয়ে বলেন, অপুর উচিত ছিল অন্য সবকিছু বাদ দিয়ে এই সংসারটা আগে গুছানো। একটা মেয়ের কাছে সংসারের চেয়ে বড় আর কি হতে পারে! কিন্তু আমি যতদূর শুনেছি বা দেখেছি। অপুর কোনো চেষ্টা ছিল না। শাকিবও তার মতো চলেছে। ফলশ্রুতিতে আজকে এসব হচ্ছে। কাউকে না কাউকে ছাড় দিতে হবে। ওরা কেউই ছাড় দিতে হয়তো রাজি ছিল না। ক্ষতিটা মূলত আমাদের ইন্ডাস্ট্রিরই হয়েছে।

কাকে নিয়ে হ্বজে যেতে চান অপু বিশ্বাস , প্রকাশ করলেন আজকে

একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়কে প্রকাশ্যে নিয়ে আসার পর থেকেই স্বামী শাকিব খানের সঙ্গে সম্পর্ক মোটেই ভালো যাচ্ছে না চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের। বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর কখনোই তাদের এক ছাদের নিচে থাকার কথাও শোনা যায়নি। আবার গত বৃহস্পতিবার আহত হয়ে জয়কে দেশে রেখে কলকাতায় যাওয়া নিয়ে আলোচিত এ জুটির মধ্যে ‍শুরু হয়েছে নতুন যুদ্ধ।

এই যুদ্ধের মধ্যেই অপু শোনালেন চমকপ্রদ এক খবর। স্বামী শাকিব খানকে নিয়ে হজে যাওয়ার ইচ্ছার কথা জানান এ অভিনেত্রী। অপু বলেন, আমি নামাজ আদায় করি, রোজা পালন করি। হজে যাওয়ারও ইচ্ছে আছে। তবে আমি একা নই। আমার স্বামী শাকিবকে নিয়ে হজে যেতে চাই।

শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কলকাতায় চিকিৎসা শেষে গেলো শনিবার রাতে দেশে ফিরেছেন তিনি। দেশে ফিরে অপু বিশ্বাস রবিবার জানান, ডিসেম্বরে আমার কাঙাল ছবির শুটিংয়ের পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু পরিপূর্ণভাবে সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত কোনো শুটিংয়ে অংশ নিতে পারবো না। ডাক্তার বলেছেন, ৩-৪ মাস পুরোপুরি বিশ্রামে থাকতে। নইলে আরো বড় ধরনের সমস্যা হতে পারে। তাই কোনো শুটিংয়ে অংশ নেয়া সম্ভব হবে না।

এদিকে দেশের শীর্ষ একটি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, অপু বিশ্বাস আর সিনেমায় অভিনয় করবেন না। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অপু বলেন, একেবারেই সিনেমা ছাড়বো এমনটা বলিনি। আমি বলেছি, এখন যেহেতু অসুস্থ তাই আমার সুস্থ হতে আরো কয়েক মাস সময় লাগবে। সে জন্য এই কয়েকটা মাস সিনেমায় কাজ করবো না। আমার বক্তব্যকে মিসইউজ করা হয়েছে।

ওই খবরে আরো বলা হয়েছে, অভিনয় ছেড়ে এখন থেকে নামাজ, রোজা ও সংসার টিকিয়ে রাখার জন্য যা যা করণীয় তাই করবেন। এসবের সত্যতা জানতে চাইলে অপু বলেন, আমি নামাজ আদায় করি, রোজা পালন করি। এটা নতুন কিছু নয়। হজে যাওয়ার ইচ্ছে আছে। তবে আমি একা নই। আমার স্বামী শাকিবকে নিয়ে হজে যেতে চাই। শাকিব ছাড়া আমি হজে যাবো না। আর আমি সবসময় চাই, শাকিবের সঙ্গে সংসার করতে। এটা সে (শাকিব) ভালো করে জানে।