Breaking News
Home / Exclucive / ভাইরাল হলো বলিউড নায়িকা ঐশ্বরিয়ার স্ক্যান্ডাল ভিডিও । লজ্জায় বচ্চন পরিবার। [ দেখুন ভিডিওটি]

ভাইরাল হলো বলিউড নায়িকা ঐশ্বরিয়ার স্ক্যান্ডাল ভিডিও । লজ্জায় বচ্চন পরিবার। [ দেখুন ভিডিওটি]

ভাইরাল হলো বলিউড নায়িকা ঐশ্বরিয়ার স্ক্যান্ডাল ভিডিও । লজ্জায় বচ্চন পরিবার। [ দেখুন ভিডিওটি]

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর ।

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।দেখুন তার পর মন্তব্য করুন পরবর্তী আপডেট পেতে পেইজ এ লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করে আমাদের সাথেই থাকবেন।

১০ম শ্রেনীর ছাত্রীর সন্তান প্রসব,স্কুলের শৌচাগারে… এলাকাজুড়ে তোলপাড় !(ভিডিও)

স্কুলের শৌচাগারে সন্তান প্রসব করল দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। গত বৃহস্পতিবার এক সরকারি স্কুলে পরীক্ষা দেয়ার সময় দশম শ্রেণীর ওই ছাত্রী সন্তান প্রসব করে। এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির মুখার্জি নগরে।

ভারতীয় দৈনিক আনন্দবাজার এক প্রতিবেদনে বলছে, পরীক্ষা চলাকালীন হঠাৎ অসহ্য যন্ত্রণা শুরু হয় ওই কিশোরীর। তখন তাকে শৌচাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই সন্তানের জন্ম দেয় সে। এর পর তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, গত দশ মাস ধরে ওই কিশোরীকে তার এক প্রতিবেশি বেশ কয়েক বার ধর্ষণ করে। অভিযুক্ত ব্যক্তি হল দিল্লির বাসিন্দা ৫১ বছরের অটোচালক আব্দুল গফুর। ওই ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে গত শুক্রবার বিহার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্ত এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

পুলিশকে ওই কিশোরী জানিয়েছে, আব্দুল গফুর তাকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে গত দশ মাসে চার থেকে পাঁচবার ধর্ষণ করে। প্রতিবারই ধর্ষণ করার পর তার মুখ বন্ধ রাখতে ৫০০-৮০০ টাকাও দিত। কাউকে জানালে তাকে প্রাণে মারারও হুমকি দেয়।

এদিকে, ওই কিশোরী যে অন্তঃস্বত্ত্বা তা টের পায়নি তার বাবা-মা। বেশ কিছুদিন ধরেই তার পেটে অসম্ভব যন্ত্রণা হচ্ছিল, সে কথা মেয়েটি তার মা-বাবাকে জানালেও তারা ততটা গুরুত্ব দেননি।

গত সপ্তাহে স্কুলের ভেতর সন্তানের জন্ম দেয়ার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পুলিশের কাছে গফুর ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

ভিডিওটি দেখুন নিচে….

স্কুলের শৌচাগারে সন্তান প্রসব করল দশম শ্রেণির এক ছাত্রী। গত বৃহস্পতিবার এক সরকারি স্কুলে পরীক্ষা দেয়ার সময় দশম শ্রেণীর ওই ছাত্রী সন্তান প্রসব করে। এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির মুখার্জি নগরে।

ভারতীয় দৈনিক আনন্দবাজার এক প্রতিবেদনে বলছে, পরীক্ষা চলাকালীন হঠাৎ অসহ্য যন্ত্রণা শুরু হয় ওই কিশোরীর। তখন তাকে শৌচাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই সন্তানের জন্ম দেয় সে। এর পর তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, গত দশ মাস ধরে ওই কিশোরীকে তার এক প্রতিবেশি বেশ কয়েক বার ধর্ষণ করে। অভিযুক্ত ব্যক্তি হল দিল্লির বাসিন্দা ৫১ বছরের অটোচালক আব্দুল গফুর। ওই ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে গত শুক্রবার বিহার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্ত এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

পুলিশকে ওই কিশোরী জানিয়েছে, আব্দুল গফুর তাকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে গত দশ মাসে চার থেকে পাঁচবার ধর্ষণ করে। প্রতিবারই ধর্ষণ করার পর তার মুখ বন্ধ রাখতে ৫০০-৮০০ টাকাও দিত। কাউকে জানালে তাকে প্রাণে মারারও হুমকি দেয়।

এদিকে, ওই কিশোরী যে অন্তঃস্বত্ত্বা তা টের পায়নি তার বাবা-মা। বেশ কিছুদিন ধরেই তার পেটে অসম্ভব যন্ত্রণা হচ্ছিল, সে কথা মেয়েটি তার মা-বাবাকে জানালেও তারা ততটা গুরুত্ব দেননি।

গত সপ্তাহে স্কুলের ভেতর সন্তানের জন্ম দেয়ার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে বিষয়টি জানায়। পুলিশের কাছে গফুর ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।